বৃহস্পতিবার, ২৫ Jul ২০২৪, ০৫:০৫ অপরাহ্ন

ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাতীয় দৈনিক অগ্নিশিখা পত্রিকা
ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাতীয় দৈনিক অগ্নিশিখা পত্রিকা এবং  অনলাইন ও ডিজিটাল মাল্টিমিডিয়া  এর জন্য সম্পূর্ণ  নতুনভাবে সারাদেশ থেকে জেলা, উপজেলা,বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও সরকারি কলেজ,পলিটেকনিকে একযোগে সংবাদকর্মী আবশ্যক বিস্তারিত জানতে ০১৮১৬৩৯৩২২৩

১নং খতিয়ানের কালেক্টরি খাস ও বনের খাস সম্পত্তি চলমান জরিপে ব্যক্তি মালিকানায় রেকর্ড ।

বিপ্লব হোসেন ( ফারুক)গাজীপুর,
কাশিমপুর থানাধীন গোবিন্দবাড়ী মৌজায় বনের সাবেক ৮৬৪ দাগের আরএস এর ১৪ টি হালদাগের মধ্যে মোট ভূমির পরিমাণ ১৭,৪৩ একর,তার মাঝে  ৭ টি হালাদাগে বনের ৩,৪৯ একর ভূমি যার অধিকাংশ ভূমিতে চলমান সিটি জরিপে বিডিএস পর্চা দেওয়া হয়েছে। সিএসএস, এস এ, মতে ৮২৫ দাগটি ১ নং কালেক্টরি  খাস খতিয়ানের এর মোট ভূমির পরিমাণ ৩,৩৯ একর বিগত Rs জরিপে জরিপ কর্মকর্তাদের  কারসাজিতে  প্রতারণামূলক লেখনীতে  দুটি খতিয়ানে বিভক্ত করা হয় একটি হল ৪৮৭ অপরটি ৫০০ খতিয়ান ৪৮৭ খতিয়ানে মোট ভূমি ১,৪৩ একর যা ৫ ব্যক্তির মালিকানায় অন্তভূক্তি ঘটে,  ব্যক্তিগন হলো জালালউদ্দিন, আজার আলী আবুল হোসেন, আবুল হাসেম, আব্দুল হেকিম,   পিতা  ডাক্তার এ কে এম জহিরুল হক ,  যার সাপোর্ট ৫০১২ নং কেবল মাত্র একটি দলিল। অপরটি ৫০০ খতিয়ানে Rs ২৭৭৪ দাগে জালাল উদ্দীন পিতা আজাহার আলী নামে একব্যক্তির মালিকানায় অন্তর্ভুক্তি ঘটে। ৪৮৭ খতিয়ান মোতাবেক মালিকগনের  দালিলিক কাগজপত্র পর্যালোচনা দেখা যায়   Rs ২৭৭৪ দাগের ২,৫৩ একর ভূমির  Rs  মালিক জালাল উদ্দীন পিতা আজাহার আলী তাহারা সহোদর ভ্রাতা হন বটে, তথাপী সেটেলমেন্ট কর্মকর্তাগণ ১৯৫৫/২৩ এর প্রজাস্বত্ব বিধান অনুশরন না করে  উল্লেখিত দুটি আরএস  দাগ কে মোট ৩৩ টি হালদাগে বিভক্ত করে ডি পি খতিয়ান ব্যক্তিমালিকানায় প্রকাশ করিয়াছেন। এছাড়া উল্লেখিত একই মৌজায়  সিএস  ৭৯২ আরএস ২৬৯৬ হালদাগে মোট ১০ শতক ভূমি ১ নং খতিয়ান ভুক্ত ভূমি যাহা এনায়েতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আওতাধীন দাতাগন  হস্তান্তর করলেও স্কুল কর্তৃপক্ষের দখলদারিত্ব না থাকায়  ইহা ব্যক্তিমালিকানা রেকর্ড দেওয়া হয় , সিএস ৮২০ দাগের মোট ভূমি ১,০৬ একর, এর কাতে বিগত আরএস রেকর্ডে  ২৭৭০ হালদাগে কালেক্টরি খাস ৮৬ শতাংশ এর কতে  ৩৩ শতক ভূমি প্রতারণামূলক লেখনীতে  ব্যক্তিমালিকানায় রেকর্ড দিয়ে অবশিষ্ট   ৫৩ শতাংশ ভূমি আরএস রেকর্ডের অন্তর্ভুক্তি করা হয় বটে,  কিন্তু  চলমান সিটি জরিপে এই অবশিষ্ট ৫৩ শতাংশ ভূমি তসদিক মাহবুবের স্বেচ্ছাচারিতায় প্রতারণা মূলক লেখনীতে ব্যক্তিমালিকানার অন্তর্ভুক্তি ঘটানো হয়েছে । এত গেল কেবল গোবিন্দবাড়ী মৌজার আংশিক বিবরণী, তবে দূঃখজনক হলেও নিদারুণ সত্য যে উল্লেখিত থানাধীন সবকটি মৌজারই চলমান সি টি জরিপের একই চিত্র। এ বিষয়টি কাশিমপুর ভূমি অফিসে কর্মরত  সাবেক ভূমি কর্মকর্তা লুৎফর রহমানের নীরবতা ও দায়িত্বে অবহেলা গাফিলতি কে অনেকে দায়ী করলেও সেটেলমেন্ট কর্মকর্তাগন এর দায় কোন ভাবে  এড়াতে পারেন না।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2022 thedailyagnishikha.com
Design & Developed BY Hostitbd.Com