বৃহস্পতিবার, ২৫ Jul ২০২৪, ০৪:৫০ অপরাহ্ন

ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাতীয় দৈনিক অগ্নিশিখা পত্রিকা
ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাতীয় দৈনিক অগ্নিশিখা পত্রিকা এবং  অনলাইন ও ডিজিটাল মাল্টিমিডিয়া  এর জন্য সম্পূর্ণ  নতুনভাবে সারাদেশ থেকে জেলা, উপজেলা,বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও সরকারি কলেজ,পলিটেকনিকে একযোগে সংবাদকর্মী আবশ্যক বিস্তারিত জানতে ০১৮১৬৩৯৩২২৩

পাবনায় ফিল্মি স্টাইলে শিশু অপহরণকালে আটক ৫

পাবনায় ফিল্মি স্টাইলে শিশু অপহরণকালে আটক ৫

মোঃ রাজিব জোয়ার্দ্দার, সিনিয়র রিপোর্টারঃ

পাবনার সদর উপজেলার আতাইকুলায় প্রকাশ্য দিবালোকে ফিল্মি স্টাইলে গলায় ধারালো অস্ত্র ও মুখে রুমাল বেঁধে ৫ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে অপহরণের চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় জড়িতসন্দেহে ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

 

বুধবার (৩১ আগস্ট) সকালের দিকে আতাইকুলার দুবলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছনে ঘটনা ঘটে। মেয়েটিকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে নিকটবর্তী সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। শিক্ষার্থী বাবলী ফারাতপুর গ্রামের বারেক ফকিরের মেয়ে। সে সদর উপজেলার দুবলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

 

 

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, ছোট বোনকে সঙ্গে নিয়ে স্কুল যাচ্ছিল বাবলী। পথে স্কুলের পেছনের দিকে পৌছলে গলায় ধারালো অস্ত্র ধলে এবং মুখে চেতনানাশক রুমাল দিয়ে জোর করে মোটরসাইকেলে তোলার চেষ্টা করে। এসময় তাদের চিৎকারে আশপাশের লোজন ছুটি আসলে মেয়েটি তাদের হাত থেকে ছুটে গিয়ে স্কুলের দিকে দৌঁড়ে পালায় এবং স্কুলের ভেতরে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এসময় স্থানীয়রা রেজাউলকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রেজাউলকে আটক করে। দুবলিয়া ফাঁড়িতে নিয়ে যাওয়া যায়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সহযোগীদের নাম বলায় তাদেরও আটক করা হয়।

 

সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার সেলিম মোর্শেদ জানান, অজ্ঞান অবস্থায় তাকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। কয়েক ঘণ্টা পর জ্ঞান ফিরেছে। শারিরীক সমস্যা আপাতত না হলেও মেয়েটি মানসিকভাবে অনেকটা আতঙ্কিত। আমরা তাকে গুরুত্বের সঙ্গে পর্যবেক্ষণে রেখেছি।

 

 

দুবলিয়া ক্যাম্পের পুলিশ ইনচার্জ এসআই আবুল কালাম আজাদ জানান, ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরা অপহরণকারী কি-না সেটা এখন পর্যন্ত জানা সম্ভব হয়নি। শিক্ষার্থী অজ্ঞান অবস্থায় সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছে। তার জ্ঞান ফিরলে প্রকৃত ঘটনা জানা সম্ভব হবে।

 

আটককৃতদের নাম-পরিচয় প্রকাশ করতে অপারগতা প্রকাশ করেছে পুলিশ। তবে স্থানীয় ও সংশ্লিষ্টসূত্রে তাদের নাম-পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- সদরের টাটিপাড়া এলাকার খুদু খাঁর ছেলে সম্রাট খান (১৮), একই গ্রামের লিয়াকত সরদারের ছেলে সম্রাট (১৯), ভাউডাঙ্গার মৃত জব্বার প্রাং ছেলে রেজাউল প্রাং (৪০) ও তারাবাড়িয়া এলাকার মনছুর আলী (৩৫)। খুদু খাঁ স্থানীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2022 thedailyagnishikha.com
Design & Developed BY Hostitbd.Com